মধুকল্পিতা চৌধুরী : “এ রাজ্যে এনআরসি হবেই। আমি দিলীপ ঘোষ বলছি দেশের সব রাজ্যের পাশাপাশি এরাজেও এনআরসি হবে” এনআরসি প্রসঙ্গে ফের একবার বিস্ফোরক রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন এনআরসি প্রসঙ্গে ফের একবার তৃণমূল সুপ্রিমোকে একহাত নিলেন মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ। এদিন শিলিগুড়ির ইন্ডোর স্টেডিয়ামে এক প্রকাশ্য জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে তিনি বলেন, “রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পথে নেমেও আটকাতে পারবেন না। নোটবন্দির সময়ও তিনি পথে নেমেছিলেন কিন্তু আটকাতে পারেননি। সুতরাং এটাও হবে।”
এমনকি এক্ষেত্রে কারো কোনো ভয়ের কারণ নেই বলেও জানান তিনি। কাগজ না থাকলেও হিন্দুদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।
এনআরসি ইস্যুতে রাজ্যের শাসকদল জোর কদমে বিরোধিতা করে চলেছেন। এরই মধ্যে এনআরসি গুজবে রাজ্যে বেশ কিছু মানুষের মৃত্যুর পর থেকেই বেশ খানিকটা অক্সিজেন পেয়ে গেছে রাজ্যের শাসক দল। তবে এই মৃত্যুর প্রসঙ্গে এদিন দিলীপ বাবু বলেন, “একটা মৃত্যুও এনআরসি-এর জন্য হয়নি। কেউ ঋণে জর্জরিত ছিল, কেউ বা মানসিক ভারসাম্যহীন। আর সেটাকে সামনে রেখেই রাজ্যে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।” এনআরসি গুজবে মৃতদের পরিবারের লোকেদের ৩লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষনাকেও কটাক্ষ করেন রাজয় বিজেপি সভাপতি। তাঁর মতে, এসব করে বিজেপি বিরোধী মনোভাব তৈরি করার চেষ্টা করা হচ্ছে।
এদিনের এই জনসভা থেকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ করেন দিলীপ বাবু। তিনি বলেন, “পুলিশ গুন্ডা দিয়ে আর ভোট করাতে পারবেন না। এবারে তৈরি হচ্ছে বুথ সুরক্ষা বাহিনী। ছাপ্পা ভোট বা বুথ জ্যামের চেষ্টা হলের পিঠের চামড়া তুলে দেওয়া হবে।” এদিন লোকসভা ভোটের ফলাফলের প্রসঙ্গ তুলে তিনি আরো বলেন, “লোকসভা ভোটে ২থেকে ১৮তে এসেছি। সেক্ষেত্রে তৃণমূল ১৯শে হাফ হয়েছে আর ২১শে সাফ হয়ে যাবে।”
এদিনের এই জনসভায় উপস্থিত ছিলেন দার্জিলিং-এর সাংসদ রাজু বিস্তা সহ রাজ্য ও জেলার অন্যান্য বিজেপি নেতৃত্ব।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here